মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, সিলেট এর সিটিজেন চার্টার

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ শিশু একাডেমী একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। ১৯৭৬ সালে শিশু একাডেমীর কার্যক্রম চালু হয়। শিশুদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের লক্ষে এ প্রতিষ্ঠানটি কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া শিশু একাডেমী শিশুদের সার্বিক কল্যানের লক্ষ্যে শিশু শ্রম, বাল্যবিবাহ, শিশু নির্যাতন, শিশু পাচাররোধসহ সর্বোপরী শিশু অধিকার বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে বর্তোমানে এ প্রতিষ্ঠানের সেবা সমূহ নিম্নে উল্লেখ করা হলো।

ক্রমিক নং

সেবার ধরন

সেবা গ্রহণকারী সংস্থা/ব্যক্তি

সেবার বিবরণ

সেবা প্রদানের স্থান

সেবা প্রদানের সময়সীমা

শিশু বিকাশ কেন্দ্র ও প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা কর্মোসূচী

০-৫ বছর বয়সী শিশু

প্রতি কেন্দ্রে ২৫-৩০ জন শিশুকে শিশু বিকাশ ও প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। কোর্সের মেয়াদ ১ বছর। সংশ্লিষ্ট শিশুদের নিয়মিত পোশাক, নাস্তা ও ঔষধ সামগ্রী বিনামুল্যে বিতরন করা হয়। এছাড়া নিয়মিতভাবে শিশুদের পারিবারিক অবস্থান সম্পর্কে খোজখবর রাখাসহ চিকিৎসকের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী

কার্যালয়, সাতক্ষীরা

আবেদনের তারিখ থেকে এক মাসের মধ্যে ভর্তি সম্পন্ন করা হয়

শিশু মনন, মেধা ও সাংস্কৃতিক বিকাশ

৬ থেকে ১৩ বছর বয়সী শিশু

শিশুদের জন্য বিভিন্ন পুস্তক প্রকাশনা,লাইব্রেরী পরিচালনাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়

 

শিশুদের সাংস্কৃতিক প্রশিক্ষন

৬ থেকে ১৩ বছর বয়সী শিশু

সাংস্কৃতিক বিভাগের মাধ্যমে শিশুদেরকে সংগীত, চিত্রাংকন, নৃত্য প্রভৃতি বিষয়ে প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়। প্রতি বছর জানুয়ারী মাসে শিশুদের ভর্তি করা হয়্ মাসিক বেতন ৩০/-টাকা, ভর্তি ফি ৭০/-টাকা। এক বছরে এককালীন ৪৩০/- টাকা দিয়ে ভর্তি হওয়া যায়। অস্বচ্ছল অভিভাবকের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের শিশুদের এবং প্রতিবন্ধী শিশুদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষন দেয়া হয়।কোর্সের শেষে সনদপত্র প্রদান করা হয়

প্রতি বছর জানুয়ারী মাসে শিশুদের ভর্তি করা হয়। ২-৩ বছর মেয়াদী কোস

শিশুদের কম্পিউটার প্রশিক্ষন

৮ থেকে ১৪ বছর বয়সী শিশু

কোর্সের মেয়াদ ৬ মাস। প্রতি ব্যাচে ২০ জন শিশু ভর্তি হতে পারবে। কোর্সের শেষে সনদপত্র প্রদান করা হয়

প্রতি ৬ মাস অন্তর

 

শিশুদের জন্য পুস্তক প্রকাশনা লাইব্রেরী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

সকল বয়সের শিশু

শিশুদের জন্য বিভিন্ন পুস্তক প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়

সারা বছরব্যাপী

সিসিমপুর আউটরীচ প্রকল্প

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু অভিভাবক ও শিক্ষক মন্ডলী

২টি ভ্যান ও সিসিমপুর আংকেল দ্বারা জেলা সদরের ৫০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিয়মিত সিসিমপুর নাটক প্রদর্শনের মাধ্যমে শিশুদের মেধা বিকাশের কার্যক্রম ৩১শে ডিশেম্বর ২০১৩ শেষ হয়েছে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে অভিবাবক ও শিক্ষকদের শিশুর পরিচর্যা, স্বাস্খ ও স্বাস্থকর অভ্যাস সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে।

সদর উপজেলাধীন ৫০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়

০-৫ বছর বয়সী শিশু

লোকাল ক্যাপাসিটি বিল্ডিং এন্ড কমিউনিটি ইমপাওয়ারমেন্ট (এলসিবিসিই)

০-১৮ বছর বয়সী সকল শিশু

লোকাল ক্যাপাসিটি ব্লিডিং এন্ড কমিউনিটি ইমপাওয়ারমেন্ট (এলসিবিসিই) প্রকল্প ইউনিসেফের আর্থিক সহায়তায় ও জেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে সাতক্ষীরা জেলার ২টি উপজেলায় আশাশুনি ও শ্যামনগরে এই কর্মোসূচী বাস্তবায়ন হচ্ছে। ২০১৬ সাল পর্যোন্ত এই প্রকল্পের মেয়াদে মূলত স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে ধাপে ধাপে উন্নয়নের মাধ্যমে বর্তোমন সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে। কর্মোসূচিটি ইতোমধ্যে শিশুদের উন্নয়নে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

আশাশুনি ও শ্যামনগর উপজেলার মোট (৮টি+৮টি)=১৬টি ইউনিয়ন (বুধহাটা, শ্রীউলা, আনুলিয়া, বড়দল, কাদাকাটি, দরগাহপুর, প্রটাপনগর, খাজরা, মুন্সিগঞ্জ, রমজাননগর, কৈখালী, ঈশ্বরীপুর, শ্যামনগর সদর, কাশিমাড়ি, বুড়িগোয়ালিনী, আটুলিয়া)

৩ বছর (সরকারি বিধিমতে নবায়নযোগ্য)


Share with :

Facebook Twitter